২৯০ কোটি টাকার প্রস্তাব ফেরালেন মেসি

মুক্তবার্তা ডেস্ক:বার্সালোনাতেই ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন তিনি। কিন্তু সেই বার্সিলোনার দেওয়া চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর প্রাথমিক প্রস্তাব ফিরিয়ে দিলেন লিওনেল মেসি!‌ ২০১৮-এর জুন পর্যন্ত বর্তমান চুক্তি রয়েছে এল এম টেনের। ক্লাব কর্তৃপক্ষ অনেকদিন ধরেই মেসির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়াতে চাইছেন। ইতিমধ্যে সুয়ারেজ আর নেইমারের সঙ্গে নতুন চুক্তি হয়েও গেছে। কিন্তু কিছুতেই মেসিকে রাজি করানো যাচ্ছে না। স্বাভাবিকভাবেই বেশ উৎকন্ঠায় বার্সিলোনা সমর্থকরা।

সম্প্রতি এল ক্লাসিকোতে জয়ের পর ক্লাব প্রেসিডেন্ট বার্তেমিউ ইঙ্গিত দিয়েছিলেন এবার মেসির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়ে ফেলা যাবে। কিন্তু ‘‌এএস’‌ পত্রিকার খবর, চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর জন্য যে ওপেনিং অফার দেওয়া হয়েছিল, সেটা পছন্দ হয়নি মেসির। ওপেনিং অফারে মেসিকে প্রত্যেক  মৌসুমে ৩ কোটি ৫০ লাখ ইউরো (‌‌যা বাংলাদেশি মূদ্রায় প্রায় দুইশ নব্বই কোটি  টাকা)।

তবে পরিস্থিতিতেও হাল ছাড়তে নারাজ বার্সা। ক্লাব প্রেসিডেন্ট বার্তেমিউ যোগাযোগ রেখে চলেছেন মেসির বাবা জর্জের সঙ্গে। বার্তেমিউয়ের আশা আগামী এক থেকে দু’‌সপ্তাহের মধ্যেই মেসিকে বুঝিয়ে ফেলতে পারবেন। ‌এদিকে মেসিকে নিয়ে ভ্রু–কুঁচকে দেওয়ার মতো আরও এক খবর সামনে এসেছে। তাঁর ছবির আড়ালেই চলছে ভয়ঙ্কর কুকর্ম!‌ মেসি জানেনই না তাঁর নাম ভাঁঙিয়ে কী চলছে। অথচ কিছু না করেই আর্জেন্টিনীয় তারকার নাম জড়িয়ে গেছে মাদক চোরাচালানের সঙ্গে!‌

‘‌এল এম–‌১০’‌–‌এর ছবিতে মুড়ে বিপুল পরিমাণ কোকেন পাচার করার চেষ্টা চালিয়েছে লাতিন আমেরিকান মাদক পাচারকারীরা। ঘটনাটি ঘটেছে পেরুতে। প্রায় দেড় হাজার কেজি কোকেন পাচার করার চেষ্টা চালানো হচ্ছিল বেলজিয়ামে। পুলিসকে ফাঁকি দেওয়ার অভিনব পদ্ধতিও গ্রহণ করা হয়েছিল। কী সেই পদ্ধতি?‌ পেরু পুলিসের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ১২৮৮টি এক ধরনের মাছ রপ্তানির প্যাকেটে ছিল এই কোকেন। তার প্রতিটি প্যাকেটে লেখা ছিল মেসির নাম এবং বার্সিলোনার জার্সি পরা মেসির ছবি। শুধু মেসির ছবিই নয়, বার্সিলোনা ‌‌এফসি ক্লাবের লোগোতে ব্যবহার করা হয়েছিল কোকেনের প্যাকেটে। সেই সঙ্গে প্যাকেটগুলোতে ছিল স্প্যানিশ রাজার সিলমোহর। সিলমোহরটি ব্যবহার করা হয়েছে মূলত মাদকের শুদ্ধতা ব্যাপারটা নিশ্চিত করার জন্য। পোর্ট অব ক্যালাওয়ের মাধ্যমে বেলজিয়ামের উদ্দেশ্যে ফাইনাল শিপমেন্টের সময়ই পুলিসের হাতে ধরা পড়ে বিশাল এই মাদকের চালান।‌‌‌‌‌‌

Related posts

Leave a Comment