যে কোন সময় মুফতি হান্নানের ফাঁসি: রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্তের অপেক্ষা

মুক্তবার্তা ডেস্ক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলাসহ শতাধিক মানুষের মৃত্যুও জন্য অভিযুক্ত জঙ্গি নেতা মুফতি আবদুল হান্নান ও তার দুই সহযোগীর ফাঁসির দ- কার্যকর হবে কি না, সে জন্য বঙ্গভবনের সিদ্ধান্তের কারা কর্তৃপক্ষ। আপিল বিভাগ তাদের রায় জানিয়ে দেয়ার পর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে প্রাণভিক্ষা চেয়েছেন হরকাতুল জিহাদের এই নেতা ও তার দুই সহযোগী। তবে এখনও বঙ্গভবনের সিদ্ধান্ত আসেনি কারা কর্তৃপক্ষের কাছে।

মুফতি হান্নান ও তার দুই সহযোগীর মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত আদেশ হয়েছে ২০০৪ সালে সিলেটের শাহজালাল (রা.) এর মাজারে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা মামলায়।

অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক ইকবাল হাসান বলেন, ‘তার আবেদন আমরা রাষ্ট্রপতির দপ্তরে পাঠিয়ে দিয়েছি। সেটি এখনও ফেরত আসেনি। আসলেই আমাদের কার্যক্রম শুরু হবে।’

রাষ্ট্রপতি তার ক্ষমতাবলে যে কোনো আসামিকে তার দ- মওকুফ করতে পারেন বা সাজা কমাতে পারেন। মুফতি হান্নান ও তার দুই সহযোগী তার কাছে আবেদন করেছেন গত ২৭ মার্চ।

রাষ্ট্রপতি কতদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাবেন-এটি সুনির্দিষ্ট নয় বলে জানান কারা কর্মকর্তা ইকবাল হাসান। তিনি বলেন,  ‘কোনো আসামির আবেদন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হয়ে  আইন মন্ত্রণালয়ে যায়। সেখান থেকে সিদ্ধান্তের পর প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অনুমোদনের পর রাষ্ট্রপতির দপ্তরে যায়। সেখান থেকে আসে আমাদের কাছে। এ ক্ষেত্রে কিছুদিন সময় লাগে।’

মুফতি হান্নান ও তার সহযোগী বিপুল বন্দী আছেন গাজীপুরের কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারে। মৃত্যুদ- পাওয়া আরেক আসামি আছেন সিলেট কারাগারে। গত ২৭ মার্চ তারা প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন

Related posts

Leave a Comment