মোবাইল ব্যাংকিংয়ে মাত্রাতিরিক্ত চার্জ আদায়

মুক্তবার্তা ডেস্ক:মোবাইল ব্যাংকিং বা মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসে (এমএফএস) অতিরিক্ত চার্জ আদায় করা হচ্ছে জানিয়ে তা কমানোর দাবি জানিয়েছেন খাত সংশি¬ষ্ট বিশিষ্টজনরা।

একইসঙ্গে ব্যাংক ছাড়া অন্য কোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লাইসেন্স না দেয়ার অনুরোধও জানান তারা। তবে এমএফএস সার্ভিস চার্জ না কমানোর পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন মোবাইল ব্যাংকিং মালিকরা।

সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (বিআইডিএস) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব বিষয় উঠে আসে।

সভায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ভবিষ্যত করণীয় শীর্ষক একটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করেন বিআইডিএসের জ্যেষ্ঠ গবেষক ড. মনজুর হোসাইন। আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক লীলা রশিদ, বিকাশের কর্ণধার কামাল কাদির, বিডি জবসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহিম মাশরুর প্রমুখ।

বিআইডিএস আয়োজিত ‘ক্রিটিকাল কনভারসেশন-২০১৭, বাংলাদেশ জার্নি: এক্সিলারেটিং ট্রান্সফরমেশন’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী গবেষণা সম্মেলনও সোমবার শেষ হয়।

সভায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের উচ্চ সার্ভিস চার্জের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিআইডিএস। বিশ্বের অনেক দেশেই বাংলাদেশের সার্ভিস চার্চের পরিমাণ অনেক কম। এছাড়া বেশি টাকা পাঠালে সার্ভিস চার্জের পরিমাণ কমানো হলেও বাংলাদেশের কোম্পানিগুলো তা করছে না। এতে মাত্রাতিরিক্ত চার্জ আদায়ের মাধ্যমে গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণা করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে বিকাশের কর্ণধার কামাল কাদির বলেন, লাখ টাকার লেনদেন হলে ব্যাংকে যাওয়া উচিৎ। কারণ বিকাশ ছোট লেনদেনের জন্য। তার মতে, ছোট লেনদেনকারীরা কখনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ করেছেন বড় লেনদেনকারীরা। তাই তাদের ব্যাংকে লেনদেন করাই ভালো।

Related posts

Leave a Comment