মিরপুর থেকে চুরি শিশু না.গঞ্জে উদ্ধার

মুক্তবার্তা ডেস্ক:রাজধানীর মিরপুর থেকে চুরি হওয়া ৮ মাস বয়সী এক শিশুকে নারায়ণগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১, যাকে চুরির পর বিক্রি করা হয়েছিল। চুরির ১০দিন পর শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার দেওভোগ পানির ট্যাংকি এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে আইনশঙ্খলা বাহিনীটি। বুধবার দুপুরে শিশুটিকে তার মায়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জে অবস্থিত র‌্যাব-১১ এর প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ কথা জানায় র‌্যাব।
সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ এর ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল কামরুল হাসান জানান, গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর মিরপুরের শাহ আলী থানা এলাকার বাসিন্দা সেতু বেগমের মেয়ে মরিয়মকে চুরি করে প্রতিবেশী মিনারা বেগম। পরে শিশুটিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ পানির ট্যাংকি এলাকার নি:সন্তান দম্পতি মাসুম ও মৌসুমীর কাছে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়া হয়।

সন্তানকে না পেয়ে শিশুটির মা সেতু বেগম শাহ আলী থানায় জিডি করেন। পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করতে না পারায় তিনি র‌্যাবের কাছে সহায়তা চান। অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব তদন্ত চালিয়ে গতকাল মধ্যরাতে বন্দরের ফরাজিকান্দা এলাকা থেকে মিনারা বেগমকে আটক করে। পরে তার দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ফতুল্লায় অভিযান চালিয়ে ওই দম্পতিকে আটক করা হয় এবং শিশু মরিয়মকে উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব আরও জানায়, মরিয়মের পাশের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন আল আমিন ও তার স্ত্রী সালমা বেগম। ১৯ ফেব্রুয়ারি নিজ ঘর থেকে আল-আমিন ও সালমা শিশু মরিয়মকে চুরি করার পর আল আমিনের বোন মিনারা বেগমের কাছে বিক্রির জন্য হস্তান্তর করেন। পরবর্তীতে মাসুম-মৌসুমি দম্পতির কাছে মাত্র ১৫ হাজার টাকায় শিশুটিকে বিক্রি করে মিনারা।

র‌্যাব আরও জানায়, ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
শিশু মরিয়মের মা সেতু বেগম জানান, এর আগে তার আরও তিন সন্তানকে অপরহণ করা হয়েছিল। তাদের একজনকে হত্যার পর রাজধানীর রমনা পার্ক থেকে লাশ উদ্ধার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। অপর দুই সন্তান এখনো নিখোঁজ রয়েছে। তিনি জানান, সর্বশেষ একমাত্র সন্তান মরিয়ম অপহরণ হলে তিনি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। থানা পুলিশের সহযোগিতা না পেয়ে তিনি র‌্যাবের সহযোগিতার আশ্রয় নিয়ে মেয়েকে ফিরে পান।

Related posts

Leave a Comment