ভাস্কর্যটি সুপ্রিম কোর্টের অ্যানেক্স ভবনের সামনে পুনঃস্থাপন

মুক্তবার্তা ডেস্ক:হেফাজতের দাবির মুখে সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের সামনে থেকে সরিয়ে নেওয়া ভাস্কর্যটি কোর্টের বর্ধিত ভবন- অ্যানেক্স ভবনের সামনে পুনঃস্থাপন করা হয়েছে।

ভাস্কর মৃণাল হক এটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে ভাস্কর্য পুনঃস্থাপনের কাজ তদারক করেন। শনিবার রাত ১০টার দিকে ভাস্কর্যটি পুনঃস্থাপনের কাজ শুরু করা হয়। শেষ হয় রাত পৌনে ১টার দিকে।

মৃণাল হক বলেন, “ভাস্কর্যটি আগে যেখানে ছিল ভালো জায়গায় ছিল, হাজার হাজার লোক দেখত।

তিনি আরো বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের পেছনে অ্যানেক্স ভবনের এই জায়গায় বাইরের লোকজন তেমন আসে না। এখানে বসানো না বসানো একই কথা। এখানে কেউ দেখবে না, জানবে না, শুধু কোর্টের লোকজনই দেখবে।”

রোমান যুগের ন্যায়বিচারের প্রতীক ‘লেডি জাস্টিস’এর আদলে এই ভাস্কর্য সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের প্রধান ফটকের বাইরে লিলি ফোয়ারার সামনে স্থাপন করা হয়েছিল গত বছরের ডিসেম্বরে।

এরপর হেফাজতে ইসলামসহ কয়েকটি ইসলামী সংগঠন ভাস্কর্যটির বিরোধিতায় নামে। গত ১১ এপ্রিল হেফাজতের আমির শাহ আহমদ শফী নেতৃত্বাধীন একদল ওলামার সঙ্গে গণভবনে এক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাস্কর্যটি সরাতে পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

ভাস্কর্য অপসারণের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী সায় দেওয়ার পর রোজা শুরুর আগে তা সরানোর দাবি জানিয়ে আসছিল হেফাজতসহ ইসলামী দলগুলো। এই দাবির মুখে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৪টায় ভাস্কর্যটি সরিয়ে নেওয়া হয়। এরপর সেটি ত্রিপলে মুড়িয়ে সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবনের পেছন দিকে রাখা হয়েছিল। গতকাল রাত ১০টার দিকে একটি ছোট পিকআপে করে ভাস্কর্যটি ভবনের সামনে আনা হয়। পরে ভারোত্তোলক যন্ত্র দিয়ে পিকআপ থেকে ভাস্কর্যটি নামানো হয়। এটি পুনঃস্থাপন করতে বেশ কয়েকজন শ্রমিককে ঝালাইসহ বিভিন্ন কাজ করতে দেখা যায়।

এদিকে ভাস্কর্য স্থাপনকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়। পৌনে ১০টা থেকে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

Related posts

Leave a Comment