ধর্ম নিয়ে মন্তব্য করায় তোপের মুখে সনু নিগাম

মুক্তবার্তা ডেস্ক:ধর্ম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বিপাকে পড়েছেন ভারতের সংগীতশিল্পী সনু নিগাম। তিনি সোমবার টুইটারে লিখেছেন, রোজ সকালে আজানের কর্কশ শব্দে তার ঘুম ভাঙে। তিনি এও লেখেন ‘আমি মুসলিম না। তাহলে কেন আজানের শব্দে আমার ঘুম ভাঙানো হবে? তিনি হিন্দু ধর্মকেও কটাক্ষ করে টুইট করেছেন। বলেছেন, তিনি মন্দির এবং গুরুদুয়ারাতেও লাউড স্পিকারের শব্দ দুষণ করছে।

বলেন, ‘মোহাম্মদের সময় তো বিদ্যুৎ ছিল না। এখন মাইক্রোফোনে আজানে সুর অনেক কর্কশ’।সনু তার টুইটে আজানের ধ্বনিকে ‘জোর করে চাপিয়ে দেওয়া’ বলে উল্লেখ করেছেন।

স্বাভাবিকভাবে এমন মন্তব্যের পর তোপের মুখে পড়েছেন সনু। শুধু মুসলিম নয়, অমুসলিমরাও তার দিকে সমালোচনার তীর ছুঁড়ছেন। হিন্দু ধর্মাবলম্বী দু’এক ভক্তও সনুকে ত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছেন টুইটারে। অনেকে বলেছেন, সনুর ক্ষমা চাওয়া উচিত। কেউ বলেছেন, তার অন্য ধর্মের প্রতি সহিষ্ণু হওয়া উচিত।

আজানের শব্দে তার ঘুম ভেঙ্গে যাওয়ায় বিরক্ত হয়ে তিনি টুইট করেন ‘আমি মুসলিম না এবং আমাকে আজানের শব্দে জাগতে হবে। কখন ভারতে এই চাপিয়ে দেয়া ধার্মিকতা বন্ধ হবে?” তিনি একে ‘চাপিয়ে দেয়া ধর্ম’ বলেও আখ্যায়িত করেছেন।

স্পষ্টত দেখা যাচ্ছে সনু দেখতে পায়নি পরবর্তীতে কি হতে যাচ্ছে তার এই মন্তব্যে। এই মন্তব্যর পরে তার পক্ষে বিপক্ষে জোর বিতর্ক শুরু হয়। সংগীত অঙ্গনের  অনেকে সনুর বক্তব্যের জের ধরে এর পক্ষে ও বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

শান সনুর পক্ষে অবস্থান নিয়ে বলেন ‘সে যা টুইট করেছে তা আমি সমর্থন করি। সে আমার বন্ধু তার জন্য নয় কারণ সে সঠিক সে জন্য। এখানকার আইন সবার জন্য সমান। প্রত্যেকের উচিত সামনে যাওয়ার পথে অন্যের কথা ভাবা’।

র‍্যাপার  বাবা সেহগাল এর মতে, ‘এটা খুবই স্পর্শকাতর বিষয়।আমি একজন শিখ এবং আমার অনেক মুসলিম এবং হিন্দু বন্ধু আছে। তাই আমি এই ধরনের টুইট কখনো করবো না। যদি এমন কিছু আমায় কখনো বিরক্ত করেও আমি এটা ইতিবাচক ভাবেই দেখব’।

সংগীত শিল্পী সোনা মাহাপাত্র বলেছেন,‘মানুষ হিসেবে আমরা সহেজেই যে কোনকিছুতে প্রতিক্রিয়া দেখাই। অন্যের স্বস্তির জায়গায় আমাদের আরো বেশি স্পর্শকাতর হওয়া উচিত। আমি সনুর উদ্দেশ্য জানি না কিংবা কোন প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন কিন্তু ব্যক্তিগত ভাবে আমি মনে করি আমরা মোটেই অন্যের বিশ্বাসে স্পর্শকাতর নই’।

ব্রিটিশ ভারতীয় র‌্যাপার হার্ড কোর বলেন ‘আমি মিলাত নগরের পাশেই থাকি, এখনে খুবই শব্দ। আপনি ভারতে শব্দ নিয়ে একটা ইস্যু তৈরি করতে পারেন না। আমরা উচ্চশব্দেই আমাদের ধর্মগুলো পালন করি এবং এটা নিয়ে অভিযোগ করতে পারি না। আপনি যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন না যেখানে নিয়ম বিধি রয়েছে। আপনি ভারতে বসবাস করছেন এবং সবার সাথে সেখানে শান্তিপূর্ণ ভাবেই বসবাস করতে হব’।

Related posts

Leave a Comment