জলাবদ্ধতা ও যানজটমুক্ত কুমিল্লা গড়ার প্রতিশ্রুতি সাক্কুর

মুক্তবার্তা ডেস্ক:কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। নগরীর ধর্মসগারপাড়ে বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে শুক্রবার বিকালে তিনি এ ইশতেহার ঘোষণা করেন। ১১ পৃষ্ঠার ২৭ দফা সম্বলিত ইশতেহার ঘোষণা করেন সদ্য সাবেক এই মেয়র।

আগামী ৩০ মার্চের নির্বাচনে পুনঃনির্বাচিত হলে নগরীর জলাবদ্ধতা এবং যানজট সমস্যাকে নিরসন করবেন বলে ইশতেহারে গুরুত্বের সঙ্গে উল্লেখ করেছেন সাক্কু। এছাড়া পুরাতন গোমতী নদীতে ঢাকার হাতিরঝিলের আদলে একটি বিনোদন কেন্দ্র গড়ার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

ইশতেহার ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদীন ফারুক, মনিরুল হক চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিন-উর রশিদ ইয়াছিন ও কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া।

ইশতেহার ঘোষণাকালে সাক্কু বলেন, ‘কুমিল্লার প্রতিটি ধূলিকণায় জড়িয়ে আছে আমার পরিবারের স্মৃতি। আন্তরিক চেষ্টা করেছি এই কুমিল্লার মাটি ও মানুষের কল্যাণ করার। নিজের বিবেকের কাছে আমি শুধু এই প্রশ্নের জবাব দেয়ার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থেকেছি, দায়িত্ব পালনে আমি আমার সাধ্য অনুযায়ী সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন শেষে বুকে সাহস নিয়ে অন্তত একথা বলতে পারি- আমার দ্বারা কারো অকল্যাণ হয়নি। সিটি করপোরেশনকে আমি রাজনৈতিক দলের প্রতিষ্ঠানে পরিণত করিনি। আমার কোনো আত্মীয়-বন্ধু আমার পদ-পদবির সুবাদে গণবিরোধী কোনো কাজ করার সুযোগ পায়নি। আমার পরিবারের কেউ সন্ত্রাসে লিপ্ত হয়ে জনগণের ত্রাসে পরিণত হয়নি।’

সাক্কু বলেন, ‘আমাদের প্রিয় কুমিল্লা একটি ঐতিহ্যবাহী পুরাতন শহর। অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠা এই শহরে জলাবদ্ধতা এবং যানজট সমস্যা দীর্ঘকালের। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব সমস্যা সমাধানের জন্য আমি গত বছরগুলোতে কিছু কাজ করেছি বলেই জলাবদ্ধতা ও যানজট কিছুটা কমেছে।’

নিজের অতীত কর্মকাণ্ডের বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, ‘মেয়র হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর আমার অন্যতম প্রধান পদক্ষেপ ছিল কুমিল্লা শহরকে জলাবদ্ধতা ও যানজটের অভিশাপ থেকে মুক্ত করার লক্ষ্যে পরিকল্পিত ও স্থায়ী ব্যবস্থা নেয়া। এই লক্ষ্যে গৃহীত মাস্টার প্লান অনুযায়ী কাজ শুরু হয়েছে এবং আগামী দুই তিন বছরের মধ্যে তা সম্পন্ন হলে কুমিল্লা শহর জলাবদ্ধতা ও যানজট মুক্ত হবে ইনশাআল্লাহ্।’

যানজট সমস্যা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘জনগণের এবং যানচালকদের সচেতনতা বৃদ্ধি করে তাদেরকে সাথে নিয়ে সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠান এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় যানজট নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছি। এতে পরিস্থিতির কিছু উন্নতি হয়েছে। এ ব্যাপারে আরও কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে। ট্রাফিকব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি ফ্লাইওভার এবং ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণের পরিকল্পনাও আমার আছে।’

সাক্কু বলেন, ‘বিগত পাঁচ বছরে মহানগরীর কোথাও হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি। বরং দরিদ্র এবং নানা কারণে পুরো হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদানে অক্ষম নাগরিকদের হোল্ডিং ট্যাক্স কমিয়ে পরিশোধের সুযোগ দেয়া হয়েছে। আগামীতেও কোনো নাগরিকের হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধি করা হবে না। সিটি করপোরেশন থেকে নতুন কোনো করের বোঝাও কারো ওপর চাপানো হবে না।’ গত পাঁচ বছরে এই নতুন সিটি করপোরেশনে ৪৩১ কোটি ২৭ লাখ টাকার উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে বলেও জানান সাবেক মেয়র।

Related posts

Leave a Comment