চলচ্চিত্রে ধর্ষণের দৃশ্য নয়: সরকারি সিদ্ধান্ত

মুক্তবার্তা ডেস্ক:কোনো সিনেমায় অশ্লীল বা অরুচিকর কোনো ছবি দেখানো যাবে না। এমনকি ধর্ষণের কোনো দৃশ্যও প্রদর্শন করা যাবে না। দেখানো যাবে না অপরাধের নতুন কৌশল। এমন বিধান রেখেই জাতীয় চলচ্চিত্র নীতিমালা ২০১৭-এর খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

জাতীয় চলচ্চিত্র দিবসে সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এই বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘এই নীতিমালা অনুসারে, চলচ্চিত্রে সরাসরি ধর্ষণের দৃশ্য দেখানো যাবে না। অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষা পরিহার করতে হবে।’

বাংলাদেশে চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা গত দুই দশক ধরেই আলোচিত বিষয়। ইদানীং কমে আসলেও চলচ্চিত্রের ভাষা এবং আধেয় কতটা মানসম্মত তা নিয়ে প্রশ্ন রয়ে গেছে। অযাচিতভাবে নারী নির্যাতন প্রসঙ্গ আর ধর্ষণের ঘটনা সামনে নিয়ে আসা হয়। কখনও কখনও এসব চিত্রায়ন হয় একেবারেই নিম্নমানের। এই পরিস্থিতি থেকে বের হয়ে আসতে শিল্প সমালোচকরা দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘নতুন চলচ্চিত্র নীতিমালা অনুযায়ী, কোনো চলচ্চিত্রেই রাষ্ট্র ও জনস্বার্থবিরোধী বক্তব্য প্রচার করা যাবে না। সমুন্নত রাখতে হবে মুক্তিযুদ্ধ, ইতিহাস ও তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা; পরিহার করতে হবে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষা।’ তিনি বলেন ‘চলচ্চিত্রে সরাসরি কোনো ধর্ষণের দৃশ্য দেখানো যাবে না। শিশু বা নারী কিংবা উভয়ের প্রতি সহিংসতা বা বৈষম্যমূলক আচরণ বা হয়বানিমূলক কর্মকাণ্ডকে উদ্ভুদ্ধ করে এমন কোনো ঘটনা ও দৃশ্য চলচ্চিত্রে প্রদর্শন করা যাবে না।’

Related posts

Leave a Comment