গোপনাঙ্গে কানের দুল ও পয়সা ঢুকিয়ে নির্যাতন

মুক্তবার্তা ডেস্ক:যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় মাদকাসক্ত স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে বুধবার বিকেলে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এক নারী। মঙ্গলবার রাতে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার বড়তলী বানিহারী ইউনিয়নের বড়তলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১০ বছর আগে এই দম্পতির বিয়ে হয়। তাদের ৩টি ছেলে সন্তান রয়েছে।

নির্যাতিত ওই নারীর মা ও ভাইয়ের অভিযোগ, বিয়ের সময়ও জামাইকে সাধ্যমত যৌতুক দেয়া হয়েছিল। কিন্তু মাদকাসক্ত জামাই মাদকের টাকার জন্য প্রায়শই স্ত্রীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। কয়েক মাস আগে যৌতুকলোভী স্বামী নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন ও মারধর করে। অত্যাচার নির্যাতন সইতে না পেরে বাপের বাড়িতে চলে যান ওই নারী।

পরবর্তীতে এলাকার লোকজন কয়েকবার গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে তাকে স্বামীর বাড়িতে পাঠায়। পরে পাষন্ড স্বামী বাপের বাড়ি থেকে টাকা এনে দেয়ার জন্য স্ত্রীর উপর অত্যাচার নির্যাতন বাড়িয়ে দেয়। স্ত্রী বাপের বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় মঙ্গলবার রাতে ওই নারীকে শারীরিক অত্যাচার নির্যাতন শুরু করে পাষণ্ড স্বামী। এসময় স্ত্রীর গোপনাঙ্গ দিয়ে পয়সা এবং কানের দুল ঢুকিয়ে দেয়। এক পর্যায়ে তাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বুধবার সন্ধ্যায় নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করার পর চিকিৎসকরা ওই নারীর গোপনাঙ্গ থেকে কানের দুল বের করে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক ফখরুল হাসান চৌধুরী  জানান, নির্যাতিতার গোপনাঙ্গ থেকে একটি কানের দুল বের করা হয়েছে। আরো কোনো কিছু ভেতরে রয়েছে কিনা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

মোহনগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বৃহস্পতিবার সকালে  জানান, স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার একমাত্র আসামি ওই পাষণ্ড স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Related posts

Leave a Comment