আজ সকাল থেকে হঠাৎবাস চলাচল বন্ধ চার জেলায়

মুক্তবার্তা ডেস্ক:কোনো প্রকার পূর্বঘোষণা ছাড়াই রবিবার সকাল থেকে হঠাৎ শ্রমিকেরা বাস চলাচল বন্ধ করে দেন। নড়াইল থেকে এসব রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ জনসাধারণ চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন।

শ্রমিকেরা জানান, ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া পেশাদার বা অপেশাদার চালক গাড়ি চালালে কারাদণ্ড ও জরিমানার বিধান রেখে গত ২৭ মার্চ মন্ত্রিসভায় ‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৭’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে বাস ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছে।

এ সভায় আরো যেসব আইনের কথা বলা হয়েছে, সেসব আইনও বাস চলাচলের ক্ষেত্রে চালকদের জন্য প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে বলে মন্তব্য করেন শ্রমিকরা।

তবে, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের খুলনা বিভাগীয় কার্যকরী কমিটির সভাপতি ছাদেক আহম্মদ খান জানান, কোনো প্রকার সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত ছাড়াই শ্রমিকেরা বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন। শুনেছি, ‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৭’-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়ায় শ্রমিকেরা বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন।

বাস শ্রমিকরা জানান, ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে নতুন আইনে। এছাড়া চালকরা গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। এ আইন ভাঙলে এক মাসের কারাদণ্ড বা পাঁচ হাজার টাকা জরিমানার কথা বলা হয়েছে।

বাস চালকরা বলেন, আগের আইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে শিক্ষাগত যোগ্যতার কোনো শর্ত ছিল না। নতুন আইনের খসড়ায় বলা হয়েছে, ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য চালককে কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি পাস হতে হবে। এছাড়া চালকের সহকারীরও (হেলপার) পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া থাকতে হবে। সহকারী হতে হলে বাধ্যতামূলকভাবে লাইসেন্স নিতে হবে। অথচ আগের অধ্যাদেশে সহকারীদের লাইসেন্সের কথা থাকলেও তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতার শর্ত ছিল না। নতুন  আইনের খসড়ায় ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে অনধিক ছয় মাসের কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয়দণ্ডের কথা বলা হলেও আগের আইনে এ ধরনের অপরাধের জন্য তিন মাসের জেল বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানার বিধান ছিল।

Related posts

Leave a Comment